মাত্র ৭ দিনে ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করুন!

বিউটি টিপস-allhealthtipsbd.com

উজ্জ্বল ও কমনীয় ত্বক সকলেরই কাম্য। বিশেষ করে একটু উজ্জ্বল ত্বক পাবার জন্য আমরা অনেকেই অনেক কিছু করে থাকি। মনে মনে সবারই নিজের ত্বকের রঙ নিয়ে কিছুটা আক্ষেপ থেকেই যায়।

তারই প্রেক্ষিতে আমাদের এত প্রচেষ্টা। কিন্তু মন অনেক খারাপ হয়ে যায় তখনই যখন আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে একটুও ফলাফল দেখতে পাওয়া যায় না।

এই অসম্ভবকে সম্ভব করার উপায় ও উপকরণ সবই রয়েছে প্রকৃতিতে। দরকার শুধু একটু নিয়মিত কিছু জিনিষ মেনে চলা ও উপযুক্ত উপকরণ ব্যবহার করা ধাপে ধাপে।

আসুন তবে দেখে নেই সে ধাপ গুলো যাতে আপনি পেতে পারেন উজ্জ্বল ত্বক, মাত্র ৭ দিনে!

প্রচুর পরিমাণে পানি পান করুন

ত্বক উজ্জ্বল করার জন্য প্রচুর পরিমাণে পানি পান করা প্রয়োজন। দিনে ৬-৮ গ্লাস পানি পান করা অবশ্যই দরকার। যদি ১ সপ্তাহের মধ্যে ত্বকের উজ্জ্বলতা দেখতে চান তবে নিয়ম করে প্রতিদিন ৬-৮ গ্লাস পানি পান করুন।

রোদ পরিহার করুন

ত্বকের উজ্জলতা বাড়াতে সবচাইতে বেশী জরুরী ত্বককে সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি থেকে বাঁচানো। যতটা সম্ভব রোদ এড়িয়ে চলবেন। বাইরে বের হলে ছাতা ও স্কার্ফ ব্যবহার করবেন অবশ্যই। বাজারে নানান রকমের সানস্ক্রিন কিনতে পাওয়া যায়, তবে সেগুলো অনেকের ত্বকেই মানানসই হয় না।

বাইরে থেকে ফিরে প্রতিদিন একটি টমেটোর রস বা থেঁতো করা টমেটো মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট রাখুন। তারপর ধুয়ে ফেলুন। রোদে পোড়ার ছাপ পড়বে না।

ঘরে বসেই ব্লিচ করুন

ব্লিচ করলে ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধি পায়। কিন্তু এর জন্য পার্লারে যাওয়ার কোন প্রয়োজন নেই। বাসায় বসেই ব্লিচ করুন। সপ্তাহের ২/৩ বার করতে পারেন।

  • -ব্লিচের জন্য সব চাইতে ভালো প্রাকৃতিক উপাদান লেবু। একটি লেবু নিয়ে মাঝামাঝি কেটে নিন। এরপর এক খণ্ড নিয়ে মুখে হালকা ভাবে ঘষে ত্বকে শুকতে দিন।
  • শুকিয়ে যাবার পর হালকা গরম পানি দিয়ে ঘষে তুলে ফেলুন। তবে যদি অ্যালার্জির সমস্যা থেকে থাকে তাহলে এটা ব্যবহার না করাই ভালো।
  • -যাদের অ্যালার্জির সমস্যা আছে তারা ১ টেবিল চামচ দুধ ও ১ টেবিল চামচ মধু মিশিয়ে ত্বকে লাগান। শুকিয়ে গেলে হালকা গরম পানি দিয়ে সামান্য ঘষে তুলে ফেলুন। এটা রোজ করতে পারবেন।

নিখুঁত সুন্দর ও উজ্জ্বল ত্বক পাওয়ার ৭টি আয়ুর্বেদিক উপায়!

ত্বকের উপরিভাগ পরিষ্কার করুন প্রতিদিন

আমরা প্রতিদিনই প্রায় বাসা থেকে বের হই। বাইরে বের হলে যে কোনো ঋতুতেই ত্বকের ওপরে ধুলোর আস্তরণ পড়ে। বাসায় ফিরে শুধু ফেসওয়াস ব্যবহারে এই ধুলো যেতে চায় না।

ত্বক পরিস্কারের জন্য কাঁচা দুধ:

আমরা প্রতিদিনই প্রায় বাসা থেকে বের হই। বাইরে বের হলে যে কোনো ঋতুতেই ত্বকের ওপরে ধুলোর আস্তরণ পড়ে। বাসায় ফিরে শুধু ফেসওয়াস ব্যবহারে এই ধুলো যেতে চায় না।

মুখের ত্বকের উপরিভাগ ও রোমকূপের গোড়া পরিস্কার করার সব চাইতে প্রাচীন পদ্ধতি হলো কাঁচা দুধ। ত্বকের উপরিভাগ ও রোমকূপের গোড়ার ময়লা যা চোখে ধরা পড়ে না এবং ফেসওয়াস দিয়েও পরিষ্কার করা যায় না, তা দূর করতে কাঁচা দুধের তুলনা হয় না।

এছাড়াও দুধ প্রাকৃতিক উপায়ে ত্বককে ময়েচারাইজ ও উজ্জ্বল করে তোলে। এই জন্য প্রথমে ফেস ওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। এতে আলগা ময়লা পরিষ্কার হবে। তারপর কাঁচা দুধে তুলো ভিজিয়ে সেই তুলো দিয়ে মুখ ভালো করে পরিষ্কার করুন। কালো হয়ে ওঠা তুলোই প্রমাণ করবে কী পরিমাণ ময়লা আপনার ত্বকে জমে ছিল।

বাসায় ফিরে মুখ ধোয়ার পর একটি তুলোর বল দুধে ভিজিয়ে মুখে বুলিয়ে নিন প্রতিদিন। এক সপ্তাহের মধ্যেই ত্বকের উজ্জলতা বৃদ্ধি ও অন্যান্য সমস্যা দূর হতে দেখতে পাবেন।

ত্বকের উজ্জলতা ও বয়সের ছাপ রোধে কমলালেবুর রস:

কমলালেবুর রস ত্বকের উজ্জলতা বাড়ায়। এবং কমলালেবুর রসের ভিটামিন সি-এর অ্যান্টিএইজিং উপাদান ত্বকে বয়সের ছাপ রোধে সহায়তা করে। এর জন্য আপনার লাগবে তাজা কমলালেবুর রস। একটি তাজা কমলা লেবুর রস বের করে মুখে লাগিয়ে রাখুন ১৫ মিনিট। তারপর কুসুম গরম পানিতে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ২/৩ বার ব্যাবহারে ত্বকের উজ্জলতা বাড়বে। এর সাথে দূর হবে ত্বকের বয়সের ছাপ।

ব্রণের সমস্যা সমাধানে অ্যালোভেরা:

অ্যালোভেরা সবচাইতে প্রাচীন ও ভালো প্রাকৃতিক উপায় ব্রণের সমস্যা সমাধানে। অ্যালোভেরার অ্যান্টিইনফ্লেমেটরি উপাদান ত্বকের সকল ধরনের ব্রন ও ইনফেকশনের সমস্যা দূর করতে সহায়তা করে। এটা ব্রন দূর করে না কিন্তু ব্রণের কারণগুলো দূর করতে সহায়তা করে। আর এর জন্য আপনার শুধুমাত্র অ্যালোভেরার পাতা লাগবে। একটি অ্যালোভেরার পাতা ভেঙে এর ভেতরের রস বের করে নিন। এই রস সরাসরি ত্বকে লাগান। শুকিয়ে গেলে কুসুম গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে প্রতিদিন করুন। এক সপ্তাহের মধ্যে ত্বকের পরিবর্তন টের পাবেন।

ত্বকের রিঙ্কেল, পিগমেনটেশন, দাগ দূর করতে আলু:
আলু অন্যতম সেরা প্রাকৃতিক একটি উপাদান যা ত্বক থেকে সব ধরনের দাগ ও ছোপ দূর করতে সাহায্য করে থাকে। শুধুমাত্র একটুকরো আলু ত্বকে ঘষে নিলেই এই ধরনের সমস্যার সমাধান হবে। প্রতিদিন একটুকরো আলু মুখের ত্বকে ঘষে নিন। সপ্তাহখানেকের মধ্যেই ত্বক থেকে দাগ উধাও হবে ১০০ ভাগ গ্যারান্টি।

ত্বকের কোমলতায় ও মসৃণতায় মধু:

মধুতে রয়েছে হিউম্যাকটেন্ট যা ত্বকের রুক্ষতা দূর করে কোমল করে তুলতে সাহায্য করে। এবং ত্বকের ব্রণের সমস্যায় তৈরি ক্ষুদ্র গর্তগুলো দূর করে ত্বককে করে তোলে মসৃণ। হাত ও মুখ ভালো মতো ধুয়ে এক টেবিল চামচ মধু নিয়ে মুখে ম্যাসাজ করুন ২০/২৫ মিনিট। প্রতিদিন ব্যাবহারে বেশ ভালো ফল পাবেন।

ত্বকে লাগান ঘরে তৈরি ত্বক উজ্জ্বল করার মাস্ক

৭ দিনে ত্বক উজ্জ্বল করার জন্য অবশ্যই ত্বকের উজ্জ্বলতার জন্য মাস্ক ব্যবহার করতে হবে। আর তা ঘরে বসেই তৈরি করে নিন। ব্লিচ করার মত এই মাস্কও প্রতিদিনই ব্যবহার করুন। ১ সপ্তাহে রঙ উজ্জ্বল হবেই।

-১ চা চামচ হলুদ বাটা নিন।
হলুদ বাটা মিহি হতে হবে। হলুদ গুঁড়োও ব্যবহার করতে পারেন।

এর সাথে ৩ টেবিল চামচ লেবুর রস নিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিন। ত্বকে লাগান।

১৫ মিনিট পরে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
অ্যালার্জির সমস্যা থেকে থাকে তবে এটা ব্যবহার না করাই ভালো।

-যাদের অ্যালার্জির সমস্যা আছে তারা ২ টেবিল চামচ মধু ও ২ টেবিল চামচ টক দই ভালো করে মিশিয়ে মুখে লাগান। ২০ মিনিট পর ভালো করে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

ভালো স্কিন প্রোডাক্ট

সব কিছুর শেষে অবশ্যই ত্বকে ময়েসচারাইজার লাগাতে হবে। এর জন্য ভালো কোন ব্র্যান্ডের ময়েসচারাইজার ব্যবহার করুতে পারেন।
যে সব স্কিন প্রোডাক্টে হাইড্রেটের মাত্রা বেশী সেসব কিনুন ও ব্যবহার করুন।
ব্লিচের পর বা মাস্ক লাগিয়ে মুখ ধোয়ার পরে অবশ্যই ত্বকে ময়েসচারাইজার লাগাবেন। রাসায়নিক প্রসাধন ব্যবহার করতে না চাইলে অলিভ ওয়েল ব্যবহার করুন।

রাতে অবশ্যই নাইট ক্রিম কিংবা অলিভওয়েল মেখে ঘুমোতে যাবেন। ১ সপ্তাহে ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়বেই।

About নওরীন জাহান

View all posts by নওরীন জাহান →